ঢাকা | মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০

অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ে বঞ্চিত তাসকিন-শরিফুল, বিসিবির ক্ষতিপূরণেই কি যথেষ্ট ?

মশিউর রহমান শাওন
প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ২২:০৮

ছবি সংগৃহীত ছবি সংগৃহীত

মশিউর রহমান শাওন : দিন দুয়েক আগে একত্রিশের ঘরে পা দিয়েছেন কুইন্টন ডি কক। আগেই বিদায় জানিয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটকে। সদ্য সমাপ্ত ওয়ানডে বিশ্বকাপ দিয়ে একদিনের ক্রিকেট থেকেও তুলে নিয়েছেন নিজের নাম। জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিটাও ছাড়তে চেয়েছিলেন। তবে হেড কোচের অনুরোধ রেখে অবসরে যাননি তিনি। তবে মন চাইলেই কেবল খেলবেন আফ্রিকার জার্সিতে। 

ক্রিকেট ক্যারিয়ারে একজন ওপেনার, পাশাপাশি তিনি উইকেট রক্ষক। যার ফলে ইনজুরির শঙ্কাও কম। তবুও এত অল্পতে কেন ছাড়লেন জাতীয় দলের দায়িত্ব। এর পেছনে কারণ একটাই, উপার্জন করতে চান টাকা। দাপিয়ে বেড়াতে চান শুধু ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট দুনিয়া। 

পরিবারকে সময় দেওয়ার নামে জাতীয় দলের সাথে চুক্তির সম্পর্ক দীর্ঘ করেন নি নিউজিল্যান্ড পেসার ট্রেন্ট বোল্ড। যদিও পেছনের কারণ সেই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ। এইতো এ মাসেই সরাসরি জাতীয় দলের কেন্দ্রীয় ‍চুক্তি থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বেশ কিছু তারকা ক্রিকেটার। এই তালিকায় রয়েছেন জেসন হোল্ডার, নিকোলাস পুরান, কাইল মেয়ার্স। 

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট থেকে  মাল্টি মিলিয়ন পাউন্ডের চুক্তির প্রস্তাব দেওয়ার গুঞ্জন উঠে জস বাটলারকে। জাতীয় দল ছাড়তে পারেন এমন সম্ভাবনাও উঁকি দেয় মাঝে মধ্যে। খুব শীঘ্রই ডি কক, বোল্টদের কাতারেও দেখা যেতে পারে ইংল্যান্ডের অনেক তারকাকে। যাদের কাছে টাকার চেয়ে জাতীয় দলের মূল্য কখনই বেশি নয়।

সম্ভাবনাকে কাজে লাগায় বিদেশি তারকা ক্রিকেটাররা। অন্যদিকে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সুযোগ হয় না অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের। ইনজুরি শঙ্কার কথা বলে রাখা হচ্ছে নিজদেশ। যদিও পরবর্তীতে দেওয়া হয় ক্ষতিপূরণ। তবে শুধু কি ক্ষতিপূরণেই যথেষ্ট ? 

২০২১ সালে আফ্রিকা সিরিজের পর ক্রিকেট দুনিয়ার গুড বুকে জায়গা পান তাসকিন। সে সিরিজের মাঝেই প্রস্তাব আসে আইপিএল থেকে। তবে জাতীয় দলের দায়িত্বকে প্রাধান্য দিয়ে নেওয়া হয়নি অভিজ্ঞতা। এরপর আবারও এসেছিল আইপিএল খেলার প্রস্তাব। একই সাথে পাকিস্তান প্রিমিয়ার লিগ, লঙ্কান প্রিমিয়ার লিগ থেকেও অফার পেয়েছিলেন। ক্রিকেট বোর্ডের চাওয়াতে প্রতিবারই জানাতে হয়েছে ‘সরি’। 

২০২৩ আইপিএলের মিনি নিলামে তাসকিনকে ঘিরে আগ্রহ ছিল নির্দিষ্ট এক ফ্র্যাঞ্চাইজির। যদিও সেটি বাতাসের খবর। তবুও সত্যি হতেই পারতো। চলতি বছর ওয়ানডেতে দেশের সেরা বোলার শরিফুল ইসলাম। তিনিও পেতে পারতেন দল। তবে নিলামে একদিন আগে সংবাদ প্রকাশ হয়, আইপিএল খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না তাসকিন-শরিফুল। মুস্তাফিজকে দেওয়া হবে শর্তযুক্ত ছাড়পত্র। 

আইপিএল নিলামের দিন তাই ঘটেছে। দল পেয়েছেন শুধুই মুস্তাফিজ। মুস্তাফিজের চেয়ে সময়ে সেরা অবস্থানে রয়েছেন অন্য দুই পেসার। ফলে তাদের দল পাওয়াটা স্বাভাবিক ঘটনাই ছিল। 

বিদেশি লিগে খেলতে না দিয়ে ক্ষতিপূরণ ব্যবস্থা চালু করেছে বিসিবি। তবে প্রশ্ন থেকে যায়, আইপিএল খেলা কি শুধুই টাকার জন্য ? ডি কক, বাটলারদের জন্য সেটি হলেও বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের জন্য হতে পারে অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের মঞ্চ। দুনিয়ার সেরা সেরা ব্যাটারদের মুখোমুখি হওয়া, আইপিএল স্নায়ু চাপে নিজেদের অভ্যস্ত করা। এছাড়াও সেরা কোচিং প্যানেলের কাছে শেখার দারুণ সুযোগও থাকে। এসব প্রতিনিয়ত মিস করছেন তাসকিন-শরিফুলরা। দিন শেষে ফলাফল বড় মঞ্চে মুক্ত হস্তে রান খরচ করেন তারা। 

ক্রিকেটে আফগানিস্তানের উদাহরণ নিয়ে আসা হয়। তাদের খেলোয়াড়রা যথেষ্ট উন্নতি করছে। উন্নতির এই মঞ্চও কিন্তু সেই আইপিএল। নিলামের আগেই দেশটির ক্রিকেট বোর্ড ঘোষণা দিয়ে দেয়, সুযোগ পাওয়া প্রতিটি খেলোয়াড় শুরু থেকে শেষ ভারতেই থাকতে পারবে। এটাকে ক্রিকেটারদের নিয়ে উদাসীনতা বলে না, বলে সুযোগ কাজে লাগানোর উৎসাহ। 

কখনও আয়ারল্যান্ড, কখনও শ্রীলঙ্কা সিরিজের জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না তাসকিনরা। অথচ চাইলেই এই সিরিজগুলোতে খেলানো যায় বিকল্প কাউকে। অথচ বিসিবির মন শুধুই তাদের ঘরবন্দি করে রাখার দিকেই। 

 

-নট আউট/এমআরএস



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

তিন পান্ডবের পাঁচ সেঞ্চুরি, ইমপ্যাক্টে এগিয়ে.....

বিশ্বকাপে ২৯ ম্যাচ খেলা সাকিবের রান ১১৪৬৷ ২৯ ম্যাচে মুশফিকের ৮৭৭ রান৷ এই রান নিয়ে রয়ে...

৬, ৬, ৬, ৬, ৬—‘রিংকু সিং’ হ্যাভ ডান ইট!

শেষ ওভারে এমন খুনে ব্যাটিং এর আগে কেউ দেখেনি বোধহয়।

তাকে সময় দিন, যেন সে হারিয়ে না যায়

‘২০১৬ সালে রিজওয়ানের সাথে ক্রিকেট নিয়ে কাজ করেছিলাম। সেসময়ে যেহেতু তার বয়স কম ছিল, দু...