ঢাকা | বৃহঃস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১

আইপিএলে চালু হচ্ছে ‘ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার’

নট আউট ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২৩ ১৬:১৭

ছবি সংগৃহীত ছবি সংগৃহীত

নট আউট ডেস্কঃ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) নিজেদের ঘরোয়া ক্রিকেটে গতবছর চালু করেছিল ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার নিয়ম। সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিতে পরীক্ষামূলক চালু করে আইপিএলেও তা চলমান রাখছে বিসিসিআই। 

প্রথমে জেনে নেওয়া যাক ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার কি?

ম্যাচ চলাকালীন সময়ে অধিনায়ক ইচ্ছে করলে প্রথম একাদশের বাইরে থেকে যে কোন একজনকে দিয়ে ব্যাটিং কিংবা বোলিং করাতে পারবে। তা অবশ্য করতে হবে ম্যাচের ১৫ তম ওভারের আগেই। 

আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ইমপ্যাক্ট প্লেয়ারের খুঁটিনাটি...


১. প্রতিটি দলকে প্রথম একাদশের সঙ্গে পাঁচজন বদলি ক্রিকেটারের নাম ঘোষণা করতে হবে। কোনও দল ম্যাচে এই পাঁচজনের মধ্য থেকে একজনকে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবে। অর্থাৎ, কোনও এক প্লেয়ারকে বসিয়ে দিয়ে তার বদলি হিসেবে নতুন কাউকে মাঠে নামাতে পারবে, যে কিনা ব্যাট-বল করতে পারবে।


২. আউট হয়ে যাওয়া ব্যাটারের বদলি হিসেবে অথবা চার ওভারের বোলিং কোটা পূর্ণ করা বোলারের পরিবর্তেও ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার ব্যবহার করা যাবে। বদলি প্লেয়ার মাঠে নেমে ব্যাট ও বল করতে পারবেন। অর্থাৎ, একজন আউট হয়ে যাওয়া ব্যাটারকে বসিয়ে দিয়ে তার পরিবর্তে যাকে মাঠে নামানো হবে, তিনিও ম্যাচে ব্যাট করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে প্রথম একাদশের অন্য একজন ব্যাট করতে পারবেন না। মোট ১১ জনের বেশি এক ইনিংসে কেউ ব্যাট করার সুযোগ পাবেন না। অবশ্য কনকাশন পরিবর্তের বিষয়টা আলাদা। সেক্ষেত্রে কেউ ব্যাট করার সময় মাথায় চোট পেয়ে মাঠ ছাড়লে, নতুন কেউ এসে তার বদলে ব্যাট করতে পারেন। সেক্ষেত্রে ১১ জনের বেশি ক্রিকেটার এক ইনিংসে ব্যাট করতে পারেন।

৩. বোলারের ক্ষেত্রে অবশ্য বিষয়টা একটু আলাদা। এখানে বোলারের সংখ্যা বেঁধে দেওয়া হয়নি। একজন বোলার চার ওভার বল করে উঠে গেলে তার বদলে মাঠে নেমে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার আরও চার ওভার বল করতে পারবেন।

৪. সাধারণত দুই ওভারের বিরতিতে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার মাঠে নামাতে হবে। তবে ব্যাটিং দল ওভারের মাঝে উইকেট হারালে তখনই ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার মাঠে নামাতে পারবে। বোলিং দল ওভারের মাঝে কোনও প্লেয়ার চোট পেলে তখন তার বদলে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার মাঠে নামাতে পারবে। ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার চোট পেলে তার বদলে সাধারণ নিয়মে বদলি ব্যবহার করা যাবে।


৫. ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার ব্যবহার করতেই হবে, এমন কোনও বাধ্যবাধকতা নেই। ম্যাচে উভয় ইনিংসের ১৫তম ওভার শুরু হওয়ার আগে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার মাঠে নামানো যাবে। ১৫তম ওভার শুরু হয়ে গেলে আর ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার ব্যবহার করা যাবে না। যে প্লেয়ারকে বসিয়ে দেওয়া হবে, তিনি বাকি ম্যাচে আর মাঠে নামতে পারবেন না। এমনকি বদলি ফিল্ডার হিসেবেও নয়।

৬. প্রথম একাদশে চারজন বিদেশি খেলানো হলে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার হিসেবে কোনও বিদেশি ক্রিকেটারকে মাঠে নামানো যাবে না। তবে যদি চারজনের কম বিদেশি ক্রিকেটারকে প্রথম একাদশে রাখা হয়, তবে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার হিসেবে কোনও বিদেশি ক্রিকেটারকে মাঠে নামানো যাবে। অর্থাৎ, ম্যাচের কোনও পর্যায়েই কোনও দল চারজনের বেশি বিদেশি ক্রিকেটার মাঠে নামাতে পারবে না।

৭. কোনও ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার মাঠে নেমেই অন্য কারও অপূর্ণ ওভার পূর্ণ করতে পারবেন না। তাকে সেই ওভার শেষ হওয়া পর্যন্ত বল করার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। অর্থাৎ কোনও বোলার মার খাচ্ছেন দেখে অধিনায়ক মাঝপথে ওভার থামিয়ে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ারকে দিয়ে সেই ওভার শেষ করাতে পারবেন না।

 

-নট আউট



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

আইপিএলের নিলামে মাহমুদউল্লাহসহ ৬ বাংলাদেশি

সর্বোচ্চ ২ কোটি রুপির ভিত্তিমূল্যে স্থান পেয়েছেন দ্য ফিজ

একনজরে আইপিএলের ১০ দলের চূড়ান্ত স্কোয়াড

শেষ হয়েছে আইপিএলের মিনি নিলাম। দশ দলের অংশগ্রহনে হতে যাওয়া লিগে দলগুলো এখন পূর্ণ শক্ত...

গুজরাট থেকে মুম্বাইয়ে হার্দিক, আইপিএল ইতিহাসে সেরা...

মুম্বাইকে পেতে মরিয়া হয়ে রয়েছে মুম্বাই কর্তৃপক্ষ। তবে হার্দিককে পেতে যথেষ্ট অর্থ নেই...