ঢাকা | বৃহঃস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১

শারজায় আফগান দাপটে অসহায় পাকিস্তান

নট আউট ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২৩ ১০:২৭

টস মুহূর্তে দুই দেশের অধিনায়ক। ছবিঃটুইটার টস মুহূর্তে দুই দেশের অধিনায়ক। ছবিঃটুইটার

নট আউট ডেস্কঃ শুরু হয়েছে আফগানিস্তান - পাকিস্তানের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। শারজায় ১ম টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তান ব্যাটিং অর্ডারকে রীতিমতো ধসিয়ে দিয়েছে আফগান বোলাররা। তাদের অসাধারন বোলিংয়ে সুবাদে পাকিস্তান আগে ব্যাট করে গুটিয়ে যায় মাত্র ৯২ রানে। আর সে রান তাড়া করে আফগানিস্তানের জয় ৬ উইকেটে। যা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে পাকিস্তানের বিপক্ষে আফগানিস্তানের প্রথম জয়।

শুরুতে শারজায় টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান অধিনায়ক শাদাব খান। যেখানে এই সিরিজে বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান সহ বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের বিশ্রাম দেওয়ার সুবাদে অধিনায়কত্ব করছেন শাদাব খান। টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত ভুল প্রমাণে বেশি সময় নেয়নি পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ১৬ রানের মাথায় মোহাম্মদ হারিস কে সাজঘরে ফিরিয়ে আফগানদের বোলিং তান্ডব শুরু হয় পাকিস্তানের ব্যাটারদের উপর। এরপর একে একে আব্দুল্লাহ সফিক,সিয়াম আইয়ুব, তাইয়াব তাহির ও আজম খানরা। তবে এরপরে অধিনায়ক শাদাব খান ও ইমাদ ওয়াসিম কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও তা আফগান বোলারদের সামনে অপর্যাপ্ত ছিল। শেষে আফগান বোলারদের অসাধারণ বোলিংয়ের সুবাদে পাকিস্তানের ইনিংস থামে ৯২ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে। আফগানিস্তানের হয়ে এই ম্যাচে ফজল হক ফারুকী , মোহাম্মদ নবী , মুজিবুর রহমান দুটি এবং রশিদ খান , নাভিনুল হক ও উমরজাই নেন একটি করে উইকেট। 

যার জবাব দিতে নেমে বেশ পাকিস্তানের বোলারদের সামনে বেশ ভালো পরীক্ষার সামনে পড়তে হয়েছে আফগান ব্যাটারদের। যেখানে পাকিস্তানের বোলাররা দলীয় ৪৫ রানে মধ্যেই আফগানিস্তানের টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে আউট করে ম্যাচে ফেরার আভাস দেন। তবে তা আর সম্ভব করতে দেননি মোহাম্মদ নবী ও নাজিবুল্লাহ জাদরান। তাদের দুইজনের অবিচ্ছিন্ন ৫৩ রানের পার্টনারশিপে জয় তুলে নেন আফগানিস্তান। যেখানে ৩৮ বলে ৩৮ করেন মোহাম্মদ নবী এবং নাজিবুল্লাহ জাদরানের ব্যাট থেকে আসে গুরুত্বপূর্ণ ১৭ রান।

 

-নট আউট/এএডি/টিএ



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

বাবরের বিশ্বরেকর্ড, রান পাহাড়ে চড়ল পাকিস্তান

আগা সালমানকে নিয়ে দিনের বাকিটা শেষ করেন বাবর আজম।

হৃদয় জিতলেন সরফরাজ, ‘ড্র’ হলো করাচি টেস্ট

জিততে হলে শেষ ১১ ওভারে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ৪৯ রান, হাতে ৪ উইকেট।

‘তিন’ সেঞ্চুরিতে পাল্টা জবাব পাকিস্তানের

১১৪ রানে শফিক ফিরলে ভাঙে ইমামের সঙ্গে ২২৫ রানের জুটি৷