ঢাকা | বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

WALTON

তামিমের শুরু থেকে শেষ

মশিউর রহমান শাওন
প্রকাশিত: ১৭ জুলাই ২০২২ ০৯:২৪

তামিম ইকবাল৷ ছবি সংগৃহীত তামিম ইকবাল৷ ছবি সংগৃহীত

মশিউর রহমান শাওন: ২০০৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর, বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে যাত্রা শুরু হয়েছিল তামিম ইকবালের৷ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সে যাত্রা থেমেছিল ৯ মার্চ ২০২০৷ এরপর আলোচনা, সমালোচনা, ভক্তদের অপেক্ষা, অতপর ১৭ জুলাই বিষণ্ণ এক ফেসবুক পোস্ট৷ যে পোস্টে নিজেকে মুক্ত করে নিয়ে অপেক্ষার প্রহর আর বাড়ায়নি খাঁন বংশের ছেলে৷ ১৩ বছরের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিকে ক্যারিয়ারকে  বিদায় বললেন ৩৩ বছর বয়সে৷

২০০৭ সালে অভিষেক ম্যাচে কেনিয়ার বিপক্ষে তামিমের ব্যক্তিগত ইনিংস ছিল ১১ রানের৷ সর্বশেষ খেলা ম্যাচে এই ওপেনার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে করেছিলেন ৪১ রান৷ সবমিলে খেলেছেন ৭৮ ম্যাচ৷

ক্যারিয়িরে ২৪ এর সামান্য বেশি গড় এবং ১১৭ স্ট্রাইকরেটে করেছেন ১৭৫৮ রান৷ ক্যারিয়ারে অর্ধশতক রয়েছে ৭টি৷ শতক নামক সোনার হরিণের স্বাদ পাওয়া খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন তামিম৷ বাংলাদেশ ইতিহাসে প্রথম এবং এখন পর্যন্ত একমাত্র ব্যাটারও তিনি যার সংগ্রববুকে রয়েছে টি-টোয়েন্টি শতক৷ এই সংস্করণে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ অপরাজিত ১০৩ রান৷

ঘরের থেকে পরের মাঠে টি-টোয়েন্টিতে তামিম বেশিই সফল৷ ২০১১-২০২০ এসময়ে তামিম নিজ দেশে ২৬ ম্যাচে ১৮. ৭৬ গড়ে করেছেন ৪৬৯ রান৷ স্ট্রাইকরেট প্রায় ১১১৷ এই পরিসংখ্যানে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৮৮ রান৷ অপরদিকে বিদেশের মাটিতে ২০০৭-২০২০ এসময়ে ২৭ ম্যাচে সংগ্রহ ৬৭২ রান৷ সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ৬৯৷ গড় প্রায় ২৭, স্ট্রাইকরেট ১১৮.৫১৷

২০০৭-২০১৬ বৈশ্বিক আসরে খেলা ২৩ ম্যাচে তামিমের সংগ্রহ ৫১৪ রান৷ ১৪৩.১৬ স্ট্রাইকরেটে গড় প্রায় ২৫৷ ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ অপরাজিত ১০৩ রান৷

নিজের খেলা ৭৮ ম্যাচের মধ্যে ৭৪ ম্যাচে ইনিংস শুরু করেছেন তামিম ইকবাল৷ বাকি চার ম্যাচে খেলেছেন অন্য পজিশনে৷ ঐ চার ম্যাচে তামিমের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৭৪ রান৷ ১২৯ স্ট্রাইকরেটে প্রায় ৩৬ গড়ে করেছেন ১৪৩ রান৷

তামিমের খেলা ম্যাচে বাংলাদেশ দল টি-টোয়েন্টিতে জয় পেয়েছে ২৪টি৷ জয়ের পেছনে তামিমের বড় অবদান ছিল ব্যাট হাতে৷ এসময়ে তামিম রান করেছেন ৮২৬৷ যেখানে গড় প্রায় ৪০৷ পরাজিত ৫২ ম্যাচে তামিম খুব একটা ভালো করতে পারেনি৷ ১৭.১৩ গড়ে করেছেন ৮৭৪ রান৷

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করে তামিম ৩৫ ম্যাচে ২৭.৮৭ গড়ে করেছেন ৮৯২ রান৷ দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করে ৪৩ ম্যাচে ২১.১২ গড়ে সংগ্রহ ৮৬৬ রান৷

তামিমের প্রথম ওপেনিং সঙ্গী ছিলেন জুনায়েদ সিদ্দিকি এবং সর্বশেষ লিটন দাস৷ তবে তামিম সবচেয়ে বেশিবার ইনিংস শুরু করেছেন সৌম্য সরকারকে নিয়ে৷ ২২ ম্যাচে দুজনে মিলে করেছেন ৪৭২ রান৷ তামিম ২০১২ সালে উইন্ডিজের বিপক্ষে মিরপুরে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সাথে ১৩২ রানের জুটি বেঁধেছিলেন৷ যা ছিল যে কোন ব্যাটারের সাথে এক ইনিংসে তামিমের সর্বোচ্চ৷

 

-নট আউট/এমআরএস



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর

জেল হেফাজতে প্রেম, বিয়েতে সম্পর্কের পূর্ণতা

গল্পটা যথারীতি বাইশ গজের একজনকে নিয়ে৷ পাকিস্তানের হয়ে অভিষেকের পর দূর্দান্ত করা মোহাম...

চাপের গ্রাফ নিম্ন হলে তৈরী হবে পঞ্চপান্ডব, অন্যথায়...

বাংলাদেশ ক্রিকেটে তরুণদের প্রতি আলাদা একধরনের চাপ কাজ করে। ক্রিকেটের প্রতি সাধারণ মান...

আত্মবিশ্বাসে মিলছে সফলতা!

বাংলাদেশ দল তার নেতৃত্বে এখন পর্যন্ত ২২ ম্যাচে জয় পেয়েছে ১৩টিতে৷ জয়ের শতকরা হারে পেছন...